mutaoatir-মুতাওয়াতির

متواتر (মুতাওয়াতির) কাকে বলে ? অত:পর এর শর্তাবলী ও হুকম বর্ণনা কর।

[et_pb_section fb_built=”1″ _builder_version=”4.16″ _module_preset=”default” global_colors_info=”{}”][et_pb_row _builder_version=”4.16″ _module_preset=”default” global_colors_info=”{}”][et_pb_column type=”4_4″ _builder_version=”4.16″ _module_preset=”default” global_colors_info=”{}”][et_pb_text _builder_version=”4.16″ _module_preset=”default” text_font=”Times New Roman||||||||” text_text_color=”#000000″ text_font_size=”17px” global_colors_info=”{}”]

ما هو المتواتر ؟ ثم بين شروطه و حكمه .
متواتر   কাকে বলে ? অত:পর এর শর্তাবলী ও হুকম বর্ণনা কর।

উপস্থাপনা : اتصال السند হিসেবে যে সকল হাদীস এসেছে তন্মধ্যে মুতাওয়াতির (mutaoatir) সর্বশ্রেষ্ঠ। রাবীর আধিক্যতার কারণে এ হাদীসকে মিথ্যা বলার কোনো অবকাশ নেই। এমনকি এ হাদীস দ্বারা কুরআনের আয়াতের ওপরও বাড়াবাড়ি করা বৈধ । خبر متواتر -এর বিস্তারিত বিবরণ নিম্নে প্রদত্ত হলো।

تعريف المتواتر:

متواترএর আভিধানিক অর্থ : متواتر শব্দটি বাবে تفاعل থেকে اسم فاعل- এর সীগাহ। এটা التواتر মাসদার থেকে এসেছে। অর্থ হলো-

১) التعاقب  তথা ধারাবাহিকতা।

২) اتيان احد بعد احد  তথা একের পর এক আসা।

৩) تتابع واحد بعد واحد  তথা একের পর এক অনুগামী হওয়া।

متواتر – (mutaoatir) এর পারিভাষিক সংজ্ঞা :

১. متواتر (mutaoatir)  হাদীসের সংজ্ঞা দিতে গিয়ে আল মানার প্রণেতা বলেন هو الخبر الذي رواه قوم لا يحصى عددهم ولا يتوهم تواطهم على الكذب ويدوم هذا الحد فيكون اخره گاوله واوله گاخره وأوسطه كطرفيه

অর্থাৎ, متواتر (mutaoatir) এমন হাদীসকে বলে যার বর্ণনাকারীগণের সংখ্যা এত বেশি যে, যাদের সংখ্যা নিরূপণ করা যায় না এবং মিথ্যার ওপর এতগুলো লোকের ঐকমত্য হওয়ার ধারণা করা যায় না, আর এ বর্ণনার ধারাবাহিকতা সর্বদা বহাল থাকবে। অর্থাৎ সর্বাবস্থায় বর্ণনাকারীর সংখ্যা সমান হবে।

২. হাফেয ইবনে হাজার আসকালানী (র) বলেন:  ان يكون له طرق بلا عدد معين فهو المتواتر  উদাহরণ : যেমন রাসূল (স)-এর বাণী-من كذب علي متعمدا فليتبوأ مقعده من النار ۔

উক্ত হাদীসদ্বয়ের বর্ণনাকারী বা রাবী এত বেশি যে, তাদের ওপর মিথ্যার অপবাদ দেয়া যায় না।

See also  সহীহ হাদিস( الحديث الصحيح ) কাকে বলে? অতঃপর এর শর্তাবলি এবং হুকুম।

حكم المتواتر:  (mutaoatir) মুতাওয়াতিরের হুকুম : متواتر  হাদীসের হুকুম নিয়ে মতভেদ রয়েছে। যেমন-

. আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াতের মতে:

ক. علم اليقين  তথা অকাট্য জ্ঞানের ফায়দা দেবে। |

খ, يكفر جاحده  তথা এর অস্বীকারকারীকে কাফের বলা যাবে।

গ. প্রয়োজনে এর দ্বারা কুরআনের আয়াতকে মানসুখ করা যাবে।

ঘ. (mutaoatir) এ হাদীসের ওপর আমল করা ওয়াজিব।

. মুতাযিলা সম্প্রদায় বলেন:

ক. এটা  علم الطمانينة তথা প্রশান্তিমূলক জ্ঞানের উপকারিতা দেবে। যাতে সত্যের দিক প্রাধান্য পাবে।

খ. অস্বীকারকারীকে কাফের বলা যাবে না।

গ. (mutaoatir) এর দ্বারা কুরআনের আয়াত রহিতকরণ জায়েয আছে।

. আবু বকর দাককাক () একদল আলেমের মতে  متواتر দ্বারা علم استدلالي

অর্জিত হয় এভাবে যে, এটা একদল সত্যপন্থি জামায়াতের সংবাদ। এর অস্বীকারকারীকে কাফের বলা যাবে।

شرائط المتواتر:

মুতাওয়াতিরের (mutaoatir) শর্ত : متواتر হাদীসের কতিপয় শর্ত রয়েছে। যেমন

১. كثرة الرواة  তথা বর্ণনাকারীগণের সংখ্যা অধিক হওয়া।

২. মিথ্যার ওপর বর্ণনাকারীগণের ঐকমত্য পোষণ করা অসম্ভব হওয়া

৩. হাদীসের সনদ متصل  হওয়া। অর্থাৎ সনদের কোনো পর্যায়ে বর্ণনাকারীর নাম বাদ না পড়া।

৪. সনদের ধারাবাহিকতা বজায় থাকা।

৫. খবরটি অনুভূতিসূচক হওয়া। অর্থাৎ حدثنا বা سمعت  এ শব্দে হাদীস বর্ণনা করা।
[/et_pb_text][/et_pb_column][/et_pb_row][/et_pb_section]

3 thoughts on “متواتر (মুতাওয়াতির) কাকে বলে ? অত:পর এর শর্তাবলী ও হুকম বর্ণনা কর।”

  1. মোঃ রফিকুল আলম

    গ. প্রয়োজনে এর দ্বারা কুরআনের আয়াতকে মানসুখ করা যাবে।
    এ কথাটা কতটুকু গ্রহণযোগ্য?
    বিস্তারিত জানতে চাই।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *